|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  দেশজুড়ে
  মাদক ব্যবসায়ীর আতংক এসআই আনছার
  Publish Time : 16 July 2019, 11:25:52:PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই আনছারুল হক সুজন মাদক ব্যবসায়ীর মূর্তীমান আতংক। প্রাত্যহিক অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসীরা পালাবার পথ খুজঁছে বর্তমানে। শহরের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ীরা এসআই আনছারুল হক সুজনকে দমানোর জন্য নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। মাদক ব্যবসায়ী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী. এবং ডাকাতরা তার ভয়ে এলাকা ছাড়া।

পুরো কক্সবাজার শহরে বড় বড় ইয়াবা ব্যবসায়ীদের অভিযান চালিয়ে অনেক ইয়াবা কারবারীদের শায়েস্তা করেছেন এই এসআই।

এসআই আনছারুল হক সুজন হার না মানা এক সৈনিক । তিনি এসব ষড়যন্ত্রে তোয়াক্কা না করে সততা ও ন্যায় নীতির উপর অবিচল থেকে তার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি তার সকল কার্যক্রমে সফলতা লাভ করে ও জেলা পর্যায়ে সম্মাাননাসহ অনেক পুরস্কার অর্জন করেছেন।

জানা যায়, কক্সবাজারের বিভিন্ন জায়গায় গড়ে উঠেছে অনেক মাদক কারবারী।

তবে সব চেয়ে বেশি মাদক ব্যবসায়ীদের বিস্তার ঘটে শহরের বৈদ্য ঘোনা, নুনিয়াছড়া, রাখাইন পাড়া, ঝাউতলা গাড়ির মাঠ, পাহাড়তলি সমিতি বাজার, ইউছুলুর ঘোনা, বাসটার্মিনাল, লারপাড়া, আদর্শ গ্রাম, উপজেলার পেছনে,খরুলিয়াসহ আশপাশ এলাকা।

ফলে মাদকের কবলে পড়ছে যুব সমাজ। অভিভাবকরা অর্থ জোগান না দিলে অভিভাবকদের উপর চড়াও হয় সন্তানরা। নেশার অর্থ না থাকলে চুরি ও ছিনতাইয়ের পথ বেছে নেয় তাদের অনেকেই। বাবা-মায়ের ভয়ে কিছু বলতে পারে না। এসব মাদকাসক্ত ও ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে হার্ড লাইনে যায় পুলিশ। তবে মাদক ব্যবসার অভিযান থামাতে অনেক চক্র বিভিন্ন ভাবে চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সবিভিন্ন সময়ে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকে।

সাম্প্রতিক সময়ে শহর ও শহরতলিসহ সদর থানাধীন বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বড় বড় ইয়াবা কারবারী আটক করে আদালতে সোর্পদ করেছেন, উদ্ধার করেছেন ইয়াবাও।

সরকার মাদকের হাত থেকে যুবসমাজকে যখন রক্ষা করতে সারা দেশে চালাচ্ছে মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযান। সেই ধারা কক্সবাজার সদর মডেল থানায়ও চলে।

সুত্রে জানা যায়, কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি ফরিদ উদ্দিন সঠিক দিক নির্দেশনায় থানা অন্যান্য পুলিশ অফিসারদের মতো এসআই আনছারুল হক সুজনও ইয়াবা, অস্ত্র উদ্ধার ও অপরাধী গ্রেফতার সহ ওয়ারেন্ট তামিল করে সুনাম কুড়িয়েছেন।

চলতি বছর ২৯ এপ্রিল কক্সবাজারের কলাতলি বাইপাস সড়কের উত্তরণ আবাসিক এলাকার গেইট থেকে ১টি দেশীয় তৈরি আগ্নেয়াস্ত্র, ২ রাউন্ড কার্তুজ ও ২’শ পিছ ইয়াবাসহ সন্ত্রাসী সাহাব উদ্দিনকে গ্রেফতার করে আলচনায় চলে আসেন এসআই আনছারুল হক সুজন। ধৃত সাহাব উদ্দিন কক্সবাজার শহরের বৈদ্যঘোনা জাদিরাম পাহাড়স্হ আব্দুর রহমানের ছেলে। এধরনের আরো অসংখ্য অপরাধীকে অস্ত্রসহ আটক করেন। বিভিন্ন সময় অভিযানে তিনি বহু ইয়াবা কারবারিকে আটক করে আদালতে সোর্পদ করেছেন।

গত বছর কক্সবাজার সদর মডেল থানার চৌকস পুলিশ কর্মকর্তা এসআই আনছারুল হক সুজন শ্রেষ্ট এসআই নির্বাচিত হন। ২৭ নভেম্বর সকাল ১১ টায় জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভায় তাঁর হাতে সম্মাননা তুলে দেন জেলা পুলিশ সুপার সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

সর্বশেষ গত ১৫ জুলাই রাতে ডায়বেটিকস হাসপাতালের গেইটের সামনে থেকে নুনিয়াছড়ার রাজিয়া মেম্বারের ছেলে তারিকুল ইসলাম কামরুলকে ২ রাউন্ড কার্তুজসহ দেশীয় তৈরি অস্ত্র সহ আটক করেন। একই সময় আরোও ৫ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। এছাড়াও বৈদ্য ঘোনার ইয়াবা ডন সুফিয়া, নুনিয়াছড়ার জাহানারা, উত্তর নুনিয়াছড়ার সাজেদা,লালপাড়ার ইয়াবা গডফাদার লাল মোহাম্মদের ছেলে বশর প্রকাশ বশিরসহ বড় বড় মাদক কারবারী গ্রেফতার করেন।

থানা সুত্রে জানা গেছে, মাদকের বিরুদ্ধে আপসহীন পুলিশ কর্মকর্তা আনছারুল হক সুজন মাদক ব্যবসায়ীদেরকে মাদকসহ আটকের ঘটনায় গত জুন মাসে ১২, চলতি জুলাই মাসে ১০, মে মাসে ১৬ মাদক মামলা দায়ের করেন।



   শেয়ার করুন
Share Button
সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 229        
   আপনার মতামত দিন

   © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি